আন্তর্জাতিক

ইসলামিক স্টেট গ্রুপ: কানাডিয়ানের বিরুদ্ধে আইএস ভিডিওতে কণ্ঠ দেয়ার অভিযোগ

ইসলামিক স্টেট গ্রুপের প্রোপাগান্ডা ভিডিওতে কণ্ঠ দেয়ার অভিযোগে কানাডার একজন নাগরিককে যুক্তরাষ্ট্রে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

সৌদি আরবে জন্ম নেয়া মোহাম্মদ খলিফাকে ২০১৯ সালে সিরিয়া থেকে আটক করে কুর্দি মিলিশিয়া বাহিনী। এরপর তাকে এফবিআইয়ের কাছে হস্তান্তর হয়েছে।

৩৮ বছর বয়স্ক ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে সহিংসতার ভিডিওতে কণ্ঠ দেয়ার অভিযোগ এনেছেন কৌঁসুলিরা।

তারা বলছেন, অনুবাদক এবং ভিডিওতে নেপথ্য কণ্ঠ নেয়ার আগে তিনি একজন আইএস যোদ্ধা হিসাবেও লড়াই করেছেন।

”সন্ত্রাসী সংগঠনকে সরঞ্জাম সহায়তা দেয়ার অভিযোগে সামনের সপ্তাহে তাকে যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালতে হাজির করা হবে।

তাকে আটকের পর সংবাদপত্রে দেয়া একটি সাক্ষাৎকারে মি. খলিফা দাবি করেছিলেন, তিনি ছোটখাটো একজন যোদ্ধা ছিলেন এবং আইএসের শুধুমাত্র নেপথ্য কণ্ঠ হিসাবে কাজ করেছেন।

তিনি দাবি করেছেন, যেসব ভয়াবহ ভিডিওতে তিনি নেপথ্য কণ্ঠ দিয়েছেন, সেগুলো ভিডিও করা অথবা সেসব ঘটনার সঙ্গে তার কোন সম্পর্ক ছিল না।

আইএসে যোগ দেয়ার জন্য সিরিয়ার উদ্দেশ্যে ২০১৩ সালে কানাডা ছাড়েন মি. খলিফা।

যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, ইংরেজি ও আরবি ভাষায় অনর্গল কথা বলতে পারার কারণে তিনি আইএসের প্রোপাগান্ডা দলের অন্যতম প্রধান সদস্যে পরিণত হন।

বিচারে দোষী প্রমাণিত হলে তার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে।

সিরিয়া এবং ইরাকের বেশ কিছু এলাকা দখল করে নেয়ার পর বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া আইএসের সেসব অনলাইন ভিডিওতে শিরচ্ছেদ করা এবং অন্যান্য বর্বরতা দেখানো হতো, যার মাধ্যমে তারা সদস্য সংগ্রহের চেষ্টা করতো।।

তবে জঙ্গি বাহিনীর দখলকৃত এলাকা হাতছাড়া হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এসব প্রোপাগান্ডা ভিডিওর সংখ্যাও কমে আসে।

সংশ্লিষ্ঠ খবরগুলো

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button