শেরপুরসারাদেশ

চিরকুট লিখে হত্যার হুমকি

শাহরিয়ার মিল্টন,শেরপুর : শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার নয়াবিল ইউনিয়নপরিষদের ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা মুকুলকে মৃত্যুর জন্য প্রস্তুতিনিতে হুশিয়ারী দেওয়া হয়েছে। জবাইকৃত একটি মুরগী ও দাফন-কাফনের পুরোসরঞ্জামসহ সাথে চিরকুট লিখে এমন হুশিয়ারি দি‌য়ে‌ছে অজ্ঞাত ব্যক্তি।শনিবার (২৩ অক্টোবর) দিবাগত রাতের কোন এক সময় বাড়ির বারান্দায় ফেলে যায় এসব।জানা গেছে, নয়াবিল ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা মুকুলহোসেন প্রতিদিনের মতো শনিবার রাতে খলিসাকুড়া গ্রামের নিজ বাড়িতে ঘুমিয়েপড়েন। রবিবার ভোরে তার বাবা জবেদ আলী ফজরের নামায পড়ার জন্য ঘুম থেকেজাগলে ঘরের বারান্দায় একটি চিরকুটসহ দাফন-কাফনের বেশকিছু সরঞ্জাম দেখতেপান। ওইসব সরঞ্জামের মধ্যে এক সেট কাফনের কাপড়, দুইটি গোলাপ জলের বোতল,আগরবাতির দুইটি প্যাকেট, একটি কেয়া সাবান, জবাই করা একটি মুরগী এবং সাথেএকটি চিরকুট ছিল।চিরকুটে লেখা রয়েছে ‘এই মুকুল, তুই কি তোর বউকে বিধবা করতে চাস ও তোরসন্তানকে এতিম করতে চাস, তোর কি জীবনের মায়া নাই ? আমরা তোকে কখন মারবআমরা নিজেও জানি না। তাই তুই তোর বাসা থেকে বের হলে কালেমা পড়ে বের হস।এই মুরগীটা দেখেছিস, মুরগীর মতো করে সাইজ করব। তোর জন্য কাফনের কাপড়পাঠিয়ে দিলাম, তুই মৃত্যুর জন্য প্রস্তুত থাকিস।’এদিকে এ ঘটনা  জানাজানি হয় এবং গ্রামজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। ছুটেআসেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গও।এ বিষয়ে মুকুল জানান, আমার সাথে এমন কোন শত্রুতা কারও নেই। কে বা কারাকেন এ কাজ করেছে তা বলতে পারছি না।নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বছির আহমেদ বাদল জানান, এ বিষয়েসাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। তদন্ত করে দেখতে হবে।

সংশ্লিষ্ঠ খবরগুলো

Back to top button